মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

এক নজরে


ভার্ক-দুর্গাপুর প্রকল্প:

 

ভিলেজ এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার (ভার্ক) সংগঠনটি প্রতিষ্ঠার পর থেকেই দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জন্য নিরাপদ পানি, স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা এবং স্বাস্থ্য অভ্যাস চর্চার উন্নয়ন সহ নানাবিধ কাজ করে যাচ্ছে। এই ধারাবাহিক কাজের অংশ হিসাবে ভার্ক ওয়াটার এইডের সহযোগিতায় রাজশাহীর দুর্গাপুরে গ্রামীন দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জন্য রুরাল ওয়াশ নামক একটি প্রকল্প গ্রহণ করে। প্রকল্পটির মেয়াদকাল এপ্রিল ২০১৩ হতে মার্চ ২০১৭ পর্যন্ত চলবে।

 

প্রকল্পের শিরোনাম:

 

‘‘গ্রামীণ দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জন্য নিরাপদ পানি, স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা সুবিধা এবং উদ্ধুদ্ধকরণের মাধ্যমে স্বাস্থ্যাভ্যাস চর্চার উন্নয়ন’’

 

প্রকল্পের লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য:

 

‘‘নিরাপদ পানি, স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা এবং স্বাস্থ্যাভ্যাসের সুযোগ সৃষ্টির মাধ্যমে দরিদ্র এবং সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীর  জীবনমান উন্নয়নে অংশীদার হওয়া’’।

 

এক নজরে কিসমতগনকৈড় ইউনিয়নের পানি পায়খানার অবস্থাঃ

 

কিসমতগনকৈড় ইউনিয়নের মোট পরিবারের সংখ্যা ৫৮৪৮, মোট জনসংখ্যা ২১৯০৮ জন।যেখানে পুরুষ ১১৪৪১ জন, নারী ১০৪৬৭ জন ও প্রতিবন্ধীব্যক্তির সংখ্যা ১২৭ জন। অর্থনৈতিক শ্রেণীবিন্যাস অনুসারে মোট জনসংখ্যার ১৫% হত-দরিদ্রসহ মোট ৪৫% মানুষদরিদ্র সীমার নিচে বসবাস করে, মধ্যবিত্ত ও ধনী শ্রেণীর মানুষ যথাক্রমে  ৩৭% ও ১৮%। স্বাস্থ্যসম্মতপায়খানা ব্যবহার করে এমন পরিবারের সংখ্যা মাত্র ২৭৫৩ টি যেখানে ২৭৬৯টি পরিবার অস্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা ব্যবহার করে আর যৌথ পায়খানা ব্যবহার করে এমন পরিবারের সংখ্যা ৩২৬ টি। ইউনিয়নে মোট ১৫ % পরিবার সারা বছর নিরাপদ পানি ব্যবহার করে অর্থাৎ গোড়া পাকা নলকূপের পানি পান করে আর ৬২% পরিবার সারা বছর নিরাপদ পানি পায়না কারন গোড়া কাঁচা নলকূপ, আংশিক কার্যকর নলকূপ, নষ্ট ইত্যাদি।

 

প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ও দক্ষ মেকানিক্স এর তালিকাঃ

 

ক্রমিক

নাম

পিতার নাম

গ্রাম/

ওয়ার্ড নং

মোবাইল নং

বিশেষ দক্ষতা

( যদিথাকে)

মো: আল আমিন

আইজ উদ্দিন রাতুগ্রাম/৩ ০১৭৯৮৯০৪১৪৭

 

মো: জেহের

ওমর আলী গোপাল পাড়া/৫ ০১৭১০৯৬৭৪৭৪

 

মো: আবুল আফছার আলী আড়ইল/৮ ০১৭১২৩৯৩৫০২

 

                  

 

প্রকল্পের অর্জন সমুহ:

 

ভার্ক নিরাপদ পানি, স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা এবং স্বাস্থ্যাভ্যাস চর্চা নিম্নলিখিত  পর্যায়ে বাস্তবায়ন করছে।

•       মাধ্যমিক স্কুল পর্যায়ে

•       কমিউনিটি পর্যায়ে

•       ইউনিয়ন পর্যায়ে

 

মাধ্যমিক স্কুল পর্যায়ে এ পর্যন্ত ভার্ক কর্তৃক বাস্তবায়িত কার্যক্রম:

 

•       ১টি স্কুলে স্কুল টয়লেট নির্মাণ করা হয়েছে যেখানে মেয়েদের বয়ঃসন্ধিকালের বিষয়টি বিবেচনায় রেখে তাদের জন্য আলাদা এমএইচএম চেম্বার করা হয়েছে। এর ফলে ৪৫৬জন ছাত্রী ও শিক্ষীকা এবং ছাত্র ও শিক্ষক এর সুফল ভোগ করছে।

•       এসএমসি, শিক্ষক এবং ক্লিনার্সদের নিয়ে ওরিয়েন্টেশন করা হয়েছে পরিষ্কার পরিছন্নতা এবং রক্ষণাবেক্ষণের উপর।

•        কিশোরী মেয়েদের ঋতুকালীন ব্যবস্থাপনা বিষয়ে নির্মাণাধীন ১টি স্কুলে ৩টি সেশন পরিচালনা করা হয়েছে যেখানে ২০৯ জন কিশোরী ঋতুকালীন ব্যবস্থাপনা বিষয়ে সচেতন হয়েছে।

•        স্কুলের ছাত্র, ছাত্রী, শিক্ষক, শিক্ষীকা, এসএমসি এবং অভিভাবকদের সাথে নির্মাণাধীন স্কুলগুলোতে ওয়াশ বিষয়ক সচেতনতা এবং রক্ষণাবেক্ষণের জন্য নিয়মিত মিটিং, ওরিয়েন্টেশন করা হয়েছে।

•        স্কুল পর্যায়ে সচেতনতা বৃদ্ধিতে বিভিন্ন দিবস পালন করা হয়েছে (বিশ্ব হাত ধোয়া দিবস, জাতীয় স্যানিটেশন মাস, বিশ্ব পানি দিবস এবং বিশ্ব পরিবেশ দিবস ইত্যাদি।

 

কমিউনিটি পর্যায়ে এ পর্যন্ত ভার্ক কর্তৃক বাস্তবায়িত কার্যক্রম:

 

-কমিউনিটি পর্যায়ে ১৪টি নতুন নলকুপ স্থাপন করা হয়েছে যেখানে মোট ৩৬৯ জন দরিদ্র জনগোষ্ঠী নিরাপদ পানি পাচ্ছে।

- কমিউনিটি পর্যায়ে ১০৩টি নলকুপের গোড়া পাকাকরন কাজ  করা হয়েছে যেখানে মোট ১৩৯৬ জন দরিদ্র জনগোষ্ঠী নিরাপদ পানি পাচ্ছে
 খানা পর্যায়ে ৩টি প্রতিবন্ধী বান্ধব ল্যাট্রিন নির্মাণ করা হয়েছে যেখানে ৩ জন ভিন্ন ধারায় সক্ষম দরিদ্র জনগোষ্ঠী সুবিধা পাচ্ছে।
- সিবিও কমিটির সদস্যদের দিয়ে খানা পর্যায়ে ৭২৫টি নতুন ল্যাট্রিন স্থাপন করানো হয়েছে যেখানে মোট ৩২৮৩ জন দরিদ্র জনগোষ্ঠী স্বাস্থ্যসম্মত ল্যাট্রিনের সুবিধা পাচ্ছে।

- কমিউনিটিতে কিশোরী মেয়েদের ঋতুকালীন ব্যবস্থাপনা বিষয়ে ৫৩টি সেশন পরিচালনা করা হয়েছে যেখানে ৭৪৪জন কিশোরী ঋতুকালীন ব্যবস্থাপনা বিষয়ে সচেতন হয়েছে
- কমিউনিটিতে ১৮ থেকে ৪৯ বছরের মহিলা যারা গৃহস্থলির কাজে নিয়োজিত এ রকম প্রতিটি বাড়ির ১ জন সদস্যকে নিয়ে ১৫ সদস্যের গ্রুপ গঠনের মধ্য দিয়ে তাদেরকে স্বাস্থ্যবিধির উপর ৭৩টি সেশন প্রদান করা হয়েছে যেখানে ১১৬৭জন মহিলা তাদের ব্যাক্তিগত স্বাস্থ্য অভ্যাস, পারিবারিক স্বাস্থ্য অভ্যাস এবং পরিবেশগত স্বাস্থ্য অভ্যাস বিষয়ে সচেতন হয়েছে।
- কমিউনিটি পর্যায়ে স্বাস্থ্যবিধির উপর ৮৭টি গম্ভীরা অনুষ্ঠান করা হয়েছে যেখানে প্রায় ৯৫০১জন জনগোষ্ঠী স্বাস্থ্যবিধির বার্তা পেয়েছে।

 

ইউনিয়ন পর্যায়ে এ পর্যন্ত ভার্ক কর্তৃক বাস্তবায়িত কার্যক্রম:

 

-১৮টি ওয়ার্ড সভায় সহায়তা প্রদান করা হয়েছে যেখানে ৫৩৬ জন নারী এবং ৭১২জন পুরুষ উপস্থিত ছিল।
- ৩টি প্রাক বাজেট প্রস্ত্ততি সভায় সহায়তা প্রদান করা হয়েছে যেখানে ২৫জন নারী এবং ৭৫জন পুরুষ উপস্থিত ছিলেন।
-৩টি বাজেট সভায় সহায়তা প্রদান করা হয়েছে যেখানে ৫১৫জন নারী এবং ১২৩৫জন পুরুষ উপস্থিত ছিলেন।
- এছাড়াও ইউনিয়ন পরিষদের বিভিন্ন কমিটিকে সচল করার জন্য বিভিন্ন প্রশিক্ষন ও বিভিন্ন মিটিং এ সহায়তা প্রদান  করা হয়েছে।

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter